1. admin@bdchannel4.com : 𝐁𝐃 𝐂𝐡𝐚𝐧𝐧𝐞𝐥 𝟒 :
বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০৯:২৩ অপরাহ্ন

ইসরায়েলের কাছে অস্ত্র বিক্রির প্রতিবাদে ব্রিটেনে বিক্ষোভ

মূলঃ বেহলুল সেটিনকায়া, অনুবাদঃ আহমাদ ফরিদ
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৫৪ বার পড়া হয়েছে
ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সামনে ইসরায়েল বিরোধী বিক্ষোভ, ছবি: আনাদোলু নিউজ এজেন্সি

 

ব্রিটেনের পার্লামেন্টের সামনে ইসরায়েলের কাছে অস্ত্র বিক্রির বিরুদ্ধে এবং গাজায় যুদ্ধবিরতির দাবিতে বিক্ষোভ করেছে শত শত ব্রিটিশ নাগরিক।

বুধবার, ১৭ এপ্রিল ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সামনে তারা এই বিক্ষোভ করেন। এ সময় একই স্থানের কিছু দূরে বিক্ষোভ করার জন্য কয়েকজন ইসরায়েল সমর্থক সমবেত হন।

বিক্ষোভে যোগ দেয়া ব্রিটিশ পার্লামেন্টের প্রধান বিরোধী লেবার পার্টির সদস্য এবং অভিবাসন বিষয়ক প্রাক্তন ছায়ামন্ত্রী বেল রিবেইরো-অ্যাডি তার বক্তব্যে বলেন,  গাজার স্বাস্থ্য অবকাঠামো এবং পানির লাইনগুলি ইসরাইল ইচ্ছাকৃতভাবে ধ্বংস করেছে, সাহায্য বন্ধ করে দিয়েছে এবং লক্ষ লক্ষ মানুষ কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে বসবাস করছে।

তিনি আরো বলেন, কেউ বলতে পারবে না যে গাজার যুদ্ধ ইসরায়েলের আত্মরক্ষার জন্য। গাজার শান্তির জন্য জন্য প্রতিবাদ অব্যাহত রাখা উচিত।

তিনি আরো বলেন, গাজায় গণহত্যাকে সমর্থনকারী সরকারগুলি যুদ্ধের বিরুদ্ধে, শান্তির স্বপক্ষে অবস্থান না পর্যন্ত আপনারা আন্দোলন চালিয়ে যান। প্রতিবাদ করতে থাকুন। ইসরায়েলের নিন্দা করা তো দূরের কথা, আমাদের সরকার তাদের অস্ত্র দিয়ে চলেছে। তারা আমাদের দেশকে গণহত্যা এবং যুদ্ধাপরাধের সহযোগী হিসেবে গড়ে তুলছে। সরকারকে অবশ্যই ইসরায়েলের কাছে অস্ত্র বিক্রি করা বন্ধ করতে হবে এবং ঘুরে দাঁড়াতে হবে।

লেবার পার্টির আরেক এমপি ডন বাটলার বলেছেন, রাজনীতিবিদ হিসেবে সংসদে শান্তি ও ন্যায়বিচারের জন্য কাজ করা তাদের দায়িত্ব।

বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন,  আপনি একজন শান্তি মিছিলকারী, ঘৃণা মিছিলকারী নন। এখানে যারা সমবেত হয়েছেন তারা সবাই যুদ্ধবিরতি চায়। তারা চায় মৃত্যু বন্ধ হোক। তারা গাজায় প্রবেশের জন্য সাহায্য চায়।

হেইস এবং হারলিংটনের এমপি জন ম্যাকডোনেল পশ্চিম তীরে অবৈধ ইসরায়েলি বসতি স্থাপনকারীদের দ্বারা সৃষ্ট সহিংসতার বিষয়ে তীব্র প্রতিবাদ করেন।

ইসরায়েলি সৈন্যরা এই অবৈধ বসতিস্থাপনকারীদের থামাতে চেষ্টা করেনি  উল্লেখ করে ম্যাকডোনেল বলেন যখন আমরা সংসদে জিজ্ঞাসা করি ব্রিটিশ সরকার এই বসতি স্থাপনকারীদের বিরুদ্ধে কি করেছে, তারা উত্তরে বলেছিল যে তারা বসতিস্থাপনকারীদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এই পুরো প্রক্রিয়ায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল মাত্র দুই জনের উপর। অথচ কয়েক হাজার বসতি স্থাপনকারী পশ্চিম তীরে অবৈধ বসতি স্থাপন করেছে।

পশ্চিম তীরে যা ঘটেছে তা একটি যুদ্ধাপরাধ, ঠিক যেমন গাজায় ঘটেছে। আমাদের অবশ্যই পশ্চিম তীরের সাথে সংহতি প্রকাশ করতে হবে। আমি ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু এবং তার ইসরায়েলি মন্ত্রিসভার পরিণতি দেখার জন্য অনেক দিন বাঁচতে চাই। হেগের আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে যুদ্ধাপরাধের দায়ে দায়ের করা মামলায় কি ব্যবস্থা নেয়া হয়- সেটা দেখার জন্যও আমি অনেক দিন বাঁকে চাই।

এদিকে একই সময় ব্রিটিশ পার্লামেন্ট স্কয়ারে পাল্টা বিক্ষোভের আয়োজন করেছিল ইসরাইল সমর্থকদের একটি দল।

পুলিশ বিক্ষোভকারীদের দুটি গ্রুপকে আলাদা করে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়ার সময় একজন ইসরায়েল সমর্থককে আটক করেছে।

আনাদোলু নিউজ থেকে নেয়া ও অনুদিত

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: বাংলাদেশ হোস্টিং