1. admin@bdchannel4.com : 𝐁𝐃 𝐂𝐡𝐚𝐧𝐧𝐞𝐥 𝟒 :
বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০১:১৫ অপরাহ্ন

ইতালি ফিলিস্তিনি বেসামরিক নাগরিকদের সহায়তায় নতুন উদ্যোগের নেতৃত্ব দেবে

মূল: নূর এসেনা এরতুর্ক, অনুবাদ: আহমাদ ফরিদ
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৫ মার্চ, ২০২৪
  • ১২২ বার পড়া হয়েছে
ইতালির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্তোনিও তাজানি, ছবি: আনাদোলু নিউজ

 

ইতালি ফিলিস্তিনি বেসামরিক নাগরিকদের সহায়তার জন্য একটি নতুন উদ্যোগের নেতৃত্ব দেবে বলে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্তোনিও তাজানি জানিয়েছেন।

সোমবার, ৪ মার্চ দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্তোনিও তাজানি ইতালীয় দৈনিক লা স্ট্যাম্পাকে বলেন, ফিলিস্তিনি  বেসামরিক জনগণকে সহায়তা করার জন্য ইতালি একটি নতুন মানবিক উদ্যোগের নেতৃত্ব দেবে।

তিনি আরো বলেন, তিনি রোম-ভিত্তিক জাতিসংঘের সব প্রতিষ্ঠানকে এ বিষয়ে আলোচনার জন্য তার মন্ত্রণালয়ে আমন্ত্রণ জানাবেন।

তাজানি আরো বলেন,  আমরা শান্তির জন্য একটি আলোচনার মাধ্যমে গাজায় খাদ্য সরবরাহের ক্ষেত্র প্রস্তুত করতে পারি। এর স্লোগান হতে পারে ‘গাজার জন্য খাদ্য’। তাজানি বলেন, এই অঞ্চলের পরিস্থিতি জটিল বলে মনে করে তার দেশ ইতালি।

তাজানি বলেন,  আমি আশা করি কাতার, মিশর এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র (মুসলিমদের পবিত্র মাস) রমজানের শুরুতে যুদ্ধবিরতির জন্য দলগুলোকে রাজি করাতে পারবে। আমাদের কৌশলগত উদ্দেশ্য হল ‘দুই জন, দুই রাষ্ট্র’। যেখানে ইসরাইল স্বীকৃত। আরব বিশ্বের নিরাপত্তায় এবং ফিলিস্তিনিদের জন্য  তাদের স্বাধীন রাষ্ট্রের  বাস্তবতা রয়েছে।

তাজানি জোর দিয়ে বলেন, যে ইসরায়েলকে ২৯ ফেব্রুয়ারি বেসামরিক ফিলিস্তিনি নাগরিকদের উপর হামলার কঠোর তদন্ত করতে হবে।

ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, ইসরায়েলি বাহিনী গাজা শহরের দক্ষিণে নাবলুসি গোলচত্বরের কাছে খাদ্যের জন্য  জড়ো হওয়া শত শত ফিলিস্তিনিদের উপর গুলি চালায়। যার ফলে ১১৮ জন মারা যান এবং ৭৬০ জন আহত হন।

ইসরায়েলি সেনাবাহিনী দাবি করেছে যে কিছু ফিলিস্তিনি তার সৈন্যদের কাছে চলে এসেছিল। ফলে তারা গুলি চালাতে বাধ্য হয়।

চরমপন্থী ডানপন্থী ইসরায়েলের জাতীয় নিরাপত্তা মন্ত্রী ইতামার বেন গভির ফিলিস্তিনি বেসামরিক নাগরিকদের উপর গুলি চালানো সৈন্যদের প্রতি সমর্থন প্রকাশ করে  তাদেরকে  “বীর” বলে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনি গোষ্ঠী হামাসের আন্তঃসীমান্ত আক্রমনের পর ইসরায়েল গাজা উপত্যকায় একটি মারাত্মক আক্রমণ শুরু করে। পরবর্তী ইসরায়েলি বোমাবর্ষণে ৩০ হাজার ৫৩৪ জন নিহত এবং ৭১ হাজার ৯২০ জন ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ এবং প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের ঘাটতিতে আহত হয়েছেন।

ইসরায়েলি যুদ্ধ গাজার জনসংখ্যার ৮৫%কে খাদ্য, বিশুদ্ধ পানি এবং ওষুধের তীব্র ঘাটতির মধ্যে অভ্যন্তরীণ বাস্তুচ্যুতির দিকে ঠেলে দিয়েছে, যখন জাতিসংঘের মতে ছিটমহলের ৬০% অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত বা ধ্বংস হয়ে গেছে।

আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে ইসরায়েল গণহত্যার দায়ে অভিযুক্ত। জানুয়ারিতে একটি অন্তর্বর্তীকালীন রায়ে তেল আবিবকে গণহত্যামূলক কর্মকাণ্ড বন্ধ করতে এবং গাজার বেসামরিক নাগরিকদের মানবিক সহায়তা প্রদানের নিশ্চয়তা দেওয়ার ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

আনাদোলু নিউজ এজেন্সি থেকে নেয়া ও অনুদিত

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: বাংলাদেশ হোস্টিং